image

গল্প সংগ্রহ: ওশো (৬ষ্ঠ পর্ব)

মহান রাজা প্রসেনজিৎ কে নিয়ে একটি চমৎকার গল্প আছে। একবার রাজা প্রসেনজিৎ বুদ্ধের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন। যখন উভয়েই আলাপচারিতায় মগ্ন ঠিক সে সময়ে সত্তর বছর বয়সী একজন বৃদ্ধ ভিক্ষু বুদ্ধের পা ছুঁয়ে বিদায় নিতে এসেছিলেন। ভিক্ষুটি বুদ্ধকে বললেন, ‘আমাকে ক্ষমা করবেন। আমি আপনাদের আলাপচারিতার বিঘ্ন ঘটিয়েছি।

image

জাহা হাদিদের সঙ্গে কথোপকথন

আমি ব্যক্তি আমি’র জায়গা থেকে অনুবাদ করেছি। যেরকমটা পড়ে মনে হয়ছে স্থপতি স্বয়ং সামনে উপস্থিত থাকলে আমি কিভাবে বলতাম আর উনিই বা কিভাবে তার জবাব দিতেন। ফলে পড়তে একটু অন্যরকম লাগতে পারে আর সেটা একেবারেই ইচ্ছাকৃত। কল্পনা প্রসূত পরিবেশ সন্দেহ নেই কিন্তু বিশ্বাস করুনকথাগুলোতে কল্পনার লেশ মাত্র নেই! ফলে কোথায় কোন ছবি বসবে সেগুলো আমি নিজের মতন করে গুছিয়েছি। অতএব, শুভ পাঠ হোক প্রিয় পাঠক

image

সিনস অফ সিনেমা

একটা সিনে স্টেডিয়ামে বেইসবল খেলা দেখতে গেছেন উনারা, আরো কয়েকজনের সাথে। সবাইরে ড্রিংকস সার্ভ করার পরে জুলিয়া রবার্টস গ্যালারিতে খাড়ায়া কথা বলতেছিলেন ওই পোলার লগে। তখন তাঁর সে এক্সপ্লেইন করে কেন সে পিচ্চি মাইয়াটারে বিয়া করতে যাইতেছে। কয়, তোমারে তো পাবলিকলি জড়ায়া ধরা যাইতো না, তুমি সইরা যাইতা খালি… আর ওরে পাবলিক জড়ায়া ধইরা রাখলে খুব খুশি হয়।

image

আমার কোন গল্প নেই

সেদিন এভাবেই পরিচিত হয়েছিলাম শারমিনের সাথে। ছয় নাম্বার প্ল্যাটফর্মের সামনের জায়গাটুকু বেশ লাগছিল। পুরানো স্টেশন থেকে পাঁচটা লাইন এসে ঢুকে পড়েছিল যেন কমলাপুরে। সবুজ ঘাসের চাদর রেললাইন ছেড়ে দুপাশে ঘন হয়ে ছিল। দূরে দেয়াল লিখন চোখে পড়ছিল, পলেস্তারা খসা দেয়ালের নীচে একটা ছোট ঘরে এক পাগল বসেছিল, পাশে আরেক পাগলি একটু পরপর মাথা চুলকাচ্ছিল, গাঁ চুলকাচ্ছিল, আর পানির ছিটা দিচ্ছিল পাগলটাকে।

image

চিত্রশিল্পে শ্লীলতা অশ্লীলতার দোহাই

গ্রীক সভ্যতা থেকে প্রাচীন ভারতীয় সভ্যতা সর্বত্র নগ্ন ভাস্কর্য ও চিত্রের স্বাক্ষর পাওয়া গেলেও সেই প্রাচীনকাল থেকে বর্তমান কাল পর্যন্ত এই নিয়ে বিতর্কের অন্ত ছিল না। চিত্রশিল্প, ভস্কর্য ও ছাপচিত্রে নগ্নতা এখন স্বাভাবিক ও শৈল্পিক বলে বিবেচিত হলেও, যুগে যুগে দেশ-কাল-পাত্র ভেদে প্রায় একই ধরণের বিরূপ পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হয়নি এমন শিল্পী বিরল।

image

গল্প সংগ্রহ: ওশো (৫ম পর্ব)

বৃদ্ধটির পাশে বসে থাকা এক লোক সব দেখলো। কৌতূহল নিয়ে সেই বৃদ্ধকে জিজ্ঞেস করলো, ‘আপনি খুব অবাক করে দিলেন। প্রথমে একজনকে বললেন এই গ্রামের লোকজন খুব মন্দ। পরবর্তীতে আবার একজনকে বললেন খুব ভাল। বিষয়টি বুঝতে পারিনি।’ বৃদ্ধটি ব্যাখ্যা করলো, ‘ মানুষ নিজে যেমন তার চারপাশকেও ঠিক সেরকমভাবে বিবেচনা করে।’

image

অ-লিঙ্গবাদী শহর

Gender, space, power, architecture এদের একে অপরের সাথে সম্পর্ক কেমন সে বিষয়ে নিজে নিজেই পড়তে শুরু করলাম। আমি একজন স্থাপত্যবিদ্যার শিক্ষার্থী এবং নারী হওয়ায় এই জায়গায় আলাদাভাবে জানার একটা টানঅনুভব করি। বুঝপড়াগুলো ভাগাবাটি করে নিতেই এই লিখা। সৌভাগ্যের কথা হলো ই-প্রকাশ আমার এই অনিশ্চয়তাকে পাত্তা দিচ্ছে। ভাব প্রকাশের স্বার্থে আমি সচেতনভাবেই কিছু ইংরেজি শব্দের ব্যবহার করেছি।

image

চ্যাপলিনের যে কথাগুলো আপনি জানেন না

চার্লি চ্যাপলিন ১৮৮৯ সালের ১৬ এপ্রিল লন্ডনে জন্মগ্রহণ করেন। চাপা কোট, সাইজে বড় প্যান্ট, বড় জুতো, মাথায় বাউলার হ্যাট, হাতে ছড়ি আর টুথব্রাশ গোঁফের সেই স্যাটায়ার চরিত্র ‘লিটল ট্রাম্প’ তাঁরই সৃষ্ট। গত ১৬ এপ্রিল গেল চ্যাপলিনের ১২৮তম জন্মদিন। আসুন জেনে নিই চ্যাপলিনের জীবনের কিছু অজানা।

image

ম্যাড সিটি : গণমাধ্যমের উন্মাদনা

ষাট দশকের পরবর্তী পৃথিবীব্যাপী রাজনৈতিক টালমাটাল সময়ে গ্রীস বংশদ্ভূত ফরাসী চলচ্চিত্রকার কনস্তান্তিন গাভরাস আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্রে আবির্ভূত হন তার ‘Z’ (১৯৬৯) ছবির মাধ্যমে। আধুনিক রাজনৈতিক চলচ্চিত্র নির্মাতাদের মধ্যে গ্রীসের কস্টা গাভরাস অন্যতম শ্রেষ্ঠ পরিচালক। ১৯৯৭ সালে ওয়ারনার ব্রাদার্স-এর প্রযোজনায় এবং কস্টা গাভরাস-এর পরিচালনায় মুক্তি পেল Mad City চলচ্চিত্রটি।

image

আর্টিস্ট’স লাইফ মেনিফেস্টো

মারিনা আব্রামোবিচ একজন যুগোস্লাভিয়ান পারফর্মেন্স আর্টিস্ট। তিনি ১৯৪৬ সালে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁকে ‘গ্রান্ডমাদার অফ পারফর্মেন্স আর্টিস্ট’ নামে অভিহিত করা হয়। একজন শিল্পীর জীবন কেমন হওয়া উচিত তা লিখতে গিয়ে মারিনা আব্রামোবিচ শিল্পীর সাথে তাঁর যাপিত জীবন, একাকীত্ব ও নির্জনতার একটি সম্পর্ক নিরূপন করেন। তিনি শিল্পীর জীবন নিয়ে লিখেন ‘আর্টিস্ট’স লাইফ মেনিফেস্টো’। ইপ্রকাশের পাঠকদের জন্যে তা অনুবাদ করা হল।