মুসলিম রাইটার, হিন্দু রাইটার লইয়া একটি সাম্প্রদায়িক পাঠ

img

আল মাহমুদ, ফররুখ, আর নজরুলের ভিত্রে যে তেজী ভাষা, তা ঠাকুর, দাশ বা উৎপলে নাই। মুসলিম কবিদের লগে হিন্দু কবিদের ভাব প্রকাশের এই ডিফরেন্স লইয়া ভাবতেছিলাম। আইজকা আল মহমুদের এক ইন্টারভিউ আমারে আরেকটু ইনসাইট দিল। 

ইন্টারভিউয়াররা কইতেছেন - ঠাকুর হইলেন পলাশী বিপর্যয়ের পরে, ইংলিশগো তল্পিবাহক, দালাল, মধ্যস্বত্তভোগী ধারার সেরা নাম। নজরুল হইলেন ১৭৫৭র পরে তিলে তিলে ধ্বংস করি দেওয়া সম্প্রদায়, যারা সাম্রাজ্যবাদীগো লগে কনফ্রন্টেশনে গেল, সেই ধারার সেরা নাম। 

তারা ইন্টারেস্টিংলি, তিরিশের রাইটারদেরেও সাম্রাজ্যবাদের তল্পীবাহক গোত্রের লোক হিসাবে আইডেন্টিফাই করতেছেন। 

আমার চিন্তার খাত হইল, সাম্রাজ্যবাদীগো লগে খাতিরের ধারা, ঠাকুর-তিরিশের দশক হইয়া হিন্দু রাইটারগো মাঝে স্থিরতার, ম্রিয়মানতার রূপ নিছে। ফাইটের ধারা মুসলিম রাইটারগো মাঝে প্রকাশের, স্ফূরণের দিকে গেছে। 

নজরুলের ভাষার বিপ্লব ফররুখে থামে নাই। আল মাহমুদে আইসা, তা পুরা বাংলাদেশের দিকে উন্মুখ হইয়া রইছে। ধর্ম কিলান তার প্রভাব সাহিত্যে বিস্তার করতেছে, তা দেখার মতনই ব্যাপার!

এই আলাপে জসীমরে আনা গেল না। আমার জসীম পাঠ অল্প বইলা।

আল মাহমুদের এই ইন্টারভিউ আবদুল হাই শিকদার, আতিক হেলাল আর জামালউদ্দিন বারী নিছিলেন, ২০০০ সনে। 

আমি এই ইন্টারভিউ পাইলাম সাজ্জাদ বিপ্লবের সম্পাদনায় 'সাক্ষাতকার আল মাহমুদ' নামের বইয়ে।


Abu Taher Tarek

আবু তাহের তারেক

জন্ম: সুহিতপুর, ছাতক; সুনামগঞ্জ প্রকাশিত বই : ফের্নান্দ পেসোয়ার নির্বাচিত কবিতা (২০১৬)। নাগরি প্রকাশ। বর্তমানে পর্তুগালে থাকেন।